হেমন্ত সকালে

বিস্তারিত পড়ুন

হেমন্ত সকালে

আলতামাস পাশা

অতঃপর পাতারা ঝরে পড়ে মৃত্তিকা বুকে; বাদামি হয়, সবুজ স্বপ্ন, বৃক্ষের পত্র সব। ঋতুর পরিবর্তন ঘটে, জগতে, সংসারে আকস্মিক কান্না ঝরে পড়ে; কাশ ফুল শাদা হয়, নীল অম্বরে শাদা মেঘ ছোঁয়ার আশায়, তারপর; কার্তিকের ভোরে হেমন্তের শিশির জমে কচুপাতা কান্নায় টলটল করে।

পরিযায়ী

বিস্তারিত পড়ুন

পরিযায়ী

আলতামাস পাশা

কার্তিকের উদাসী সকালে শিশির বিন্দু জমে থাকা ঘাসে তোমার পদচিহ্ন খুঁজে ফিরি পরিযায়ী পাখির মতন। দেশান্তরী আমার মন কী পাবার সাধে ধান, নদী, বকেদের আস্তানা ছেড়ে পেঁচার মতন অন্ধকার খুঁজে পেতে চায়। ছোট ছোট পোকা-মাকড় অথবা সাপ-ব্যাঙ ধরে খেতে জীবনের তরে। জীবনের অর্থ শুধু খাদ্যান্বষনে কেটে যায় মাস ও বছর, আবার আসে হেমন্তের হিম ঝরা সন্ধ্যা আর রাত। আসে নবান্নের শস্য উৎসব, ধানের গন্ধ ভাসে কার্তিকের দেশে অঘ্রাণের হিমেল রাতে।

ভালোবাসার সফটওয়্যার

বিস্তারিত পড়ুন

ভালোবাসার সফটওয়্যার

আলতামাস পাশা

তুমি তো জানোই না কেমন করে একটি বিকেল বুড়িয়ে যাচ্ছে বাইরে- তুমি ব্যস্ত- ডাটাবেজ, ইন্টারনেট আর ওয়েব পেজ নিয়ে। পুরোনো ম্মৃতিময় ফাইলগুলো ডকুমেন্টসহ ফেলোছো যে মুছে কিন্তু হার্ডডিস্ক, তুমি আর ভালোবাসা দিয়ে ফরমেট করোনি। ভালোবাসা ভরা কতই না ই-মেইল পাঠাই একটিবারও ওপেন করোনি, ভাইরাস সখ্যতা ছড়িয়ে পড়ার ভয়, প্রতিশ্রুতি দিয়ে লক্ষ ডিস্কেট পাঠাই প্রতিবারই তোমার মনের মনিটরে লেখা হলো- ‘দ্য ডিস্ক ইজ আনরিডেবল’।

অজান্তে আমি

বিস্তারিত পড়ুন

অজান্তে আমি

আলতামাস পাশা

কখন অজান্তে নাম লিখে যাই, পাথরে, গাছের বুকে। আমি হই শিশির কণা অথবা সকালের এক ঝলক রোদ। নাম থাকে, আমি থাকি না। আমি মৃত্যু হই, কখনওবা স্বপ্নও- তারপর ঝরে যাই, যেন ঝরা বকুল।।

নূরজাহান

বিস্তারিত পড়ুন

নূরজাহান

আলতামাস পাশা

ঐ ভস্মিভূত বৃক্ষের কাছে জিজ্ঞাসা কর মাটিতে পড়ে থাকা হাড়গুলি কার? এই মাত্র বৃক্ষের সঙ্গে পুড়ে ছাই হল একটি মানুষ। কে ছিল সে? সেতো মানুষ নয় নারী! অতত্রব শতাব্দীর লাঞ্জনা শুধু তার জন্য সঞ্চিত। পৃথিবীর সব পাপের, সমাজের সব অবক্ষয়ের দায়ভার শুধুই কী সে নারীর? ঐ ভস্মিভূত বৃক্ষের কাছে জিজ্ঞাসা কর মাটিতে পড়ে থাকা হাড়গুলি কার? এইমাত্র সভ্যতার ঘৃণ্যতম বিচারে পুড়ে ছাই হলো নিষ্পাপ একটি হ্নদয় ভালোবাসা ‘ পবিত্র একটি শব্দ না পাওয়ার অতৃপ্তির মাঝে ভালোবাসা শান্তি খুঁজে ফেরে। তেমনি শান্তি খুঁজেছিলো মধুখালি গ্রামের নূরজাহান! হয়তো হ্নদয়ে ছিল না বলার ব্যথার প্রস্রবণ। বয়স্ক স্...

bdjogajog