কোনো কিছুই আর নেই আগের মতো

বিস্তারিত পড়ুন

কোনো কিছুই আর নেই আগের মতো

আলতামাস পাশা

এখন আর কলা বাদুর উড়ে যায় না কড়িকাঠের খোপে খোপে; ডাকে না আর পেঁচা ডুমুর গাছের নির্জন অন্ধকারে, সংসার জীবন এখন বড্ডো বেশি আধুনিক। যুদ্ধের খবর গ্রামেগঞ্জে আগেও এসে পৌঁছতো, এখন পৌঁছায় অন্যরকমভাবে। ডলার, পাউন্ড আর রিয়েলের কারসাজিতে গ্রামীণ জনপদে আর রাত নামে না। ঘুম নেই, গরিব গরিবস্য মানুষ আর সদ্য ধনী হওয়া মানুষের চোখে। জরাগ্রস্ত পৃথিবীকে ক্রমশ গ্রাস করে দাবানল, গ্রীষ্মে খড়তাপ আর প্রবলতর শীতের কাঁপন। কোন কিছুই নেই আর আগের মতন; বিশ্বাস, নির্ভরতা আর প্রেম: সব কিছু ছায়ায় হারায়; পরে থাকে পোড়া ঘা্স, পশু আর ক্ষতময় জীবন।।

রাত্রির শপথ

বিস্তারিত পড়ুন

রাত্রির শপথ

আলতামাস পাশা

নিস্তব্ধ রাত্রির শপথ সামনের অন্ধকার পথ কাঁটায় ভরা। অমাবস্যা আজ, কৃষ্ণপক্ষের শেষ তিথি। চন্দ্রকলার অদৃশ্যকাল; এমন অমানিশা রাতে প্রেতপুরীতে চলে গোপন অভিসার।। এমন নিকষ রাতে তুমি নাই- আমি নাই সব একাকার।।

সব উচ্ছ্বাস থামলে তুমি কোথায় থাকবে?

বিস্তারিত পড়ুন

সব উচ্ছ্বাস থামলে তুমি কোথায় থাকবে?

আলতামাস পাশা

সব উচ্ছ্বাস এক সময় থেমে যাবে, তুমি তখন আবার মেতে উঠবে নতুন কিছু নিয়ে। জী্বন কেবল উচ্ছ্বাস আর উৎকণ্ঠায় ভরা কত বার নানা রঙের উচ্ছ্বাস, উৎকণ্ঠা, আকুলতা তুমি পার হয়ে এলে। এ যেন প্রশান্ত মহাসাগরের ঢেউয়ের মতো; অথবা, আতলান্টিক মহাসাগরের শীতলতম ঢেউয়ের আহাজারি; কিন্তু সব উচ্ছ্বাস, উৎকণ্ঠা, আকুলতা, আকাঙ্খা থেমে যাবার পরে তোমার অবস্থান কোথায় হবে? নতুন ভেসে উঠা পদ্মা সেতুতে? না’কি কিছুটা পুরাতন যমুনা সেতুর ফাটল ধরা অংশে??

শতাব্দীর অভিশাপ

বিস্তারিত পড়ুন

শতাব্দীর অভিশাপ

আলতামাস পাশা

মাটির পৃথিবীতে কোনো স্বপ্ন নেই। শুধু সর্নিবন্ধ সন্তাপ ভাঙ্গা মাটি কঠিন পাথর… পূর্বে পশ্চিমে পশ্চাতে উঠছে অরুন্তদ আর্তনাদ অন্তহীন প্রতিবাদের অণু-পরমাণু ভাঙা নাগালিভ এর মতো কাঁপছে… নির্বীয ঈশ্বর স্থবির ঈশ্বর ক্লিষ্ট পঙ্গু ঈশ্বর সৃষ্টি মুর্হূমুহূ ডুবে যায় ঘন তমিস্রার মাঝে বন্দি আত্না প্রত্নতত্ত্বে নেহারিয়া জীবনের রূঢ় পরিস্থিতি স্থূল পরিস্থিতি নিরাভ… নগ্ন বর্ণহীন বৈচিত্রহীন শুকর শিশ্নে কাঁপে প্রতিচ্ছায়ার প্লাবন।

শেষ সূর্য

বিস্তারিত পড়ুন

শেষ সূর্য

আলতামাস পাশা

দিনের শেষ সূর্য রেখে যায় আলোর অন্তিম চিহ্ন গাছের পাতায়, ফুলের পাঁপড়িতে অনামিকার ঠোঁট ও স্তনের চূড়ায়। সন্ধ্যাবেলা আগুন জ্বলে, উত্তাপ ছড়ায়। আদিম সন্ধ্যা, আদিম রাত ঘনায়। যেখানে পুরুষ ঘাস হয়, হয় শিশিরের কণা, তারপর পুরুষটি জীবন প্রমিত বলে বিশ্বাস করে। গঙ্গা সঙ্গমে ¯œাত অনামিকা নিজেরই ভুলে ঝাপটায় ডানা অবুঝ পাখির মতো রাত শেষ হলে।।

bdjogajog