তোমাদের মাঝে দেশপ্রেম কোথায় হারিয়ে গেছে?

বিস্তারিত পড়ুন

তোমাদের মাঝে দেশপ্রেম কোথায় হারিয়ে গেছে?

আলতামাস পাশা

যদি সফল হও তোমার লুঙ্গি পরা ছবি ইতিহাস হবে। যদি তুমি ব্যর্থ হও তোমার স্যুট পরা ছবিটাও সবার উপহাসের বস্তু হবে। অতত্রব সফলতার কথা না ভেবে, কেনো তুমি অপকর্মে বিভোর হও? কেনো যাও না ভুলে তোমাদের অতীত কার্যকলাপ; মতলববাজ তোমাদের মনের কোণে দেশপ্রেম, অঙ্গীকার,প্রত্যয়, সহনশীলতা আর ভালোবাসা হারিয়ে গেছে কোথায়? তা কোন ইউনিভার্সে হারিয়ে ফেলেছো। কোন দিন আর তা ফিরে পাবে কি?

আমাদের ভুল ভেবেছো  তোমরা

বিস্তারিত পড়ুন

আমাদের ভুল ভেবেছো তোমরা

আলতামাস পাশা

আমাদের নিরবতাকে তোমরা প্রশ্রয় ভেবে ভুল করছো; আমাদের প্রতিবাদহীনতাকে তোমরা আমাদের পরাজয় ভেবে আনন্দ করছো। কিন্তু কোন কবির মনকে তুমি অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করতে পারবে না। কবিকেও তুমি রিমাান্ডে পাঠাবে? পাঠাও, কী এমন তথ্য পাবে তার কবিতায় অথবা কল্পনায়? গাছেদের কথা? আদিবাসী মানুষের প্রকৃতিকে ভালবাসার কথা? তুমি কি তার কল্পনায় বিষধর সাপ খুঁজে পাবে? যেমনটা আজ পৃথিবী জুড়ে সর্বত্র বিরাজমান: সোশ্যাল মিডিয়া আর কর্পোরেট জগত জুড়ে! কষ্ট দিবে তারপরও? কবির তো জন্মই হয় কষ্ট নিয়ে; আর কী এমন কষ্ট তুমি তাকে দিবে? তার চেয়ে কবিকে এবার যেতে দাও ‘সুবোধ’দের সাথে।।

গন্তব্য নেই

বিস্তারিত পড়ুন

গন্তব্য নেই

আলতামাস পাশা

শহরের কোলাহল ভালোলাগে না। বর্বর শহর তুমি গ্রাস করো গ্রাম: পিচঢালা রাজপথে অহংকার, লুণ্ঠন আর কান্নার দিনলিপি লেখা হয় অবিরাম, অবিরত। বহুতল ভবন আর বস্তিতে মিথ্যের কথকতা… কর্পোরেট কালচার গিলে খায় সব! প্রতিদিন পাখিরা কেবল ডানা মেলে শহরেও, মিলিয়ে যায় গন্তব্যে দিগন্তে বিলীন। মানুষের নেই কেনো গন্তব্য, আদিগন্ত মিথ্যার বেসাতি কেবল।

প্রতিশ্রুতি ঝাপসা হয়

বিস্তারিত পড়ুন

প্রতিশ্রুতি ঝাপসা হয়

আলতামাস পাশা

তারপর পাখিরা ফিরে গেল। শীতের শেষে ঘরমুখো সব। তুমি শুধু ফিরে এলে না। প্রতিশ্রুতি কেবলি ঝাপসা হয়ে আসে। ক্রমে ক্রমে সব কিছু হারিয়ে যায়। প্রথম দেয়া গোলাপ ফুল শুকিয়ে যায়। মুছে যায় ভিডিওগুলো। ফোনের মেমরি ডিলিট হয়ে যায় তবুও- হাতরে ফিরি স্বপ্নকে, হাতরে ফিরি স্মৃতিকে।।

সৌম্য অবয়ব মানুষটা

বিস্তারিত পড়ুন

সৌম্য অবয়ব মানুষটা

আলতামাস পাশা

সৌম্য অবয়ব মানুষটা আর নেই! চৌয়ান্ন হাজার বর্গ মাইলের মানচিত্রের বুকে হেঁটে চলা এক সৌম্য অবয়ব মানুষ আর নেই আমাদের মাঝে। রাজশাহীর আম বন ছুঁয়ে কবে সে পা রাখে মহাসাগরের ওপারে ইমোরি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ চত্বরে। একদিন আটলান্টার স্পর্শ নিয়ে ফিরে আসে তরুণ এই বাংলার শ্যামলিমায়। তারপর সময় গিয়েছে চলে ঘাস আর লতাপাতাদের মাঝে। রামধনু ওঠা পড়ন্ত বিকেলে, বৃষ্টিভেজা সকালের রোদে- সৌম্য অবয়ব মানুষটা কাজ করে চলে, জনপদে, লোকালয়ে, পাহাড়ে, সবুজে ঢাকা গ্রামে। লেখা হয় পাহাড়ী মানুষের কথা, লেখা হয়-‘ক্যান উই গেট অ্যালোন’? সম্প্রীতির লেবাস পরে কতদূর যাওয়া যাবে আর? সৌম্য অবয়ব মানুষটা অ...

bdjogajog