অবশেষে  প্লুটোর জয়

বিস্তারিত পড়ুন

অবশেষে প্লুটোর জয়

আলতামাস পাশা

প্রথম অধ্যায় ছুটি কাটাতে বন্ধুর কাছে এসেছে জোসেফ। ছেলেবেলার বন্ধু নাহিদ কাজ কওে পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকায়। এখানে রাঙামাটির টংকাবতিতে রয়েছে বিশাল একটি রেডিও টেলিস্কোপ। এর মাধ্যমে মহাশূন্যের কোটি কোটি আলোকবর্ষ দূরের গ্রহনক্ষত্রের পাঠানো রেডিও টেলিস্কোপিক সিগন্যাল গ্রহণ করা হয়। তারপর বিশ্লেষণ করে দেখা হয় প্রাকৃতিক রেডিও সিগন্যাল ছাড়াও অন্য কোন রেডিও সিগন্যাল এসে পৌঁছে কিনা। রাঙামাটির এই রেডিও টেলিস্কোপটি মহাকাশে বুদ্ধিমান প্রাণীর অনুসন্ধান করে চলেছে। মূল অবজারভেটরি ছোট পাহাড়ের উপর অবস্থিত। ছোট একটি শহর এখানে গড়ে উঠেছে। রয়েছে সুপার রেলস্টেশ...

বাতওয়ালের ক্ষুধা

বিস্তারিত পড়ুন

বাতওয়ালের ক্ষুধা

আলতামাস পাশা

ধারাবাহিক সায়েন্স ফিকশন কল্প কাহিনী বাতওয়ালের ক্ষুধা প্রথম অধ্যায় সেবার উড়িষ্যার বিড়িগড় পাহাড়ের নির্জনতম বনাঞ্চলে এক অদ্ভুত কাণ্ড ঘটে গেল-যা বিশ্বাসের বাইরে- যা কেউ কল্পনা করতেও পারবে না। বিশ্বাস তো দূরের কথা। শিকারের বাতিক রয়েছে ধনকুবের শিল্পপতি মিনহাজ সাহেবের। ভারত সরকারের অনুমতি নিয়ে শিকারের গেলেন তিনি উড়িষ্যায়। সঙ্গে একমাত্র ছেলে সেলিম। সেও বাপের মতো শিকারী। এছাড়া দলে আছে আরও তিনজন। ছোট একটি মশাল জ্বেলে তারা দু’জন- মিনহাজ সাহেব আর সেলিম কথা বলছিলেন। সুপার চার্জার লাইটের চার্জ শেষ হয়ে যাওয়াতে তারা মশাল জ্বালতে বাধ্য হয়েছেন। মিনহাজ সাহেবের মুখ শুক...

পৃথিবীর  মানুষ  আসছে

বিস্তারিত পড়ুন

পৃথিবীর মানুষ আসছে

আলতামাস পাশা

‘বাতাস আরও ভারি হবে। রামধনুর রথে করে আসবে কাজাকরা। তারপর পৃথিবীতে শুধুই শূন্যতা বিরাজ করবে। সৃষ্টির আদিতে কিছু ছিল না, সৃষ্টির শেষেও কিছু থাকবে না।’ “গোটা গ্যালেক্সিতে পৃথিবীর মেয়েরাই সবচেয়ে সুন্দর!” ১. অসম্ভব একটা থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে ‘ লা সুইকা’ মানমন্দিরে। ‘হাই -সুপার’ কম্পিউটার একঘন্টা আগেও যে তথ্য দিয়েছে তাতে দারুন উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়েছে মঙ্গলগ্রহে। মঙ্গলের দশটি সুপার কলোনীতে জরুরি সর্তকতা ঘোষণা করা হয়েছে। আন্তঃ কলোনী স্পেসশিপগুলোকে স্পেস ডোমে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। ছায়াপথের কাছাকাছি অবস্থিত মঙ্গলের স্পেস ঘাঁটি ‘নেব্যুলা –৭৫ ’এর সব স্পেস ফ...

চকরিয়ার বনদেবী

বিস্তারিত পড়ুন

চকরিয়ার বনদেবী

আলতামাস পাশা

মনটা কিছুদিন থেকেই ভার ভার লাগছিল। চাকরিতে একঘেঁয়েমী আসা যাকে বলে তাই আমাকে পেয়ে বসেছিলো। বন বিভাগের চাকরিতে একটি রোমাঞ্চ থাকে সব সময়ই। কিন্তু চোরাই কাঠ পাচারকারীদের পিছু ঘুরতে ঘুরতে মেজাজটা আমার একেবারে খিঁচরে গিয়েছিলো গত ছ’মাসে। পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে চকরিয়া সুন্দরবনে বদলি হয়ে প্রথমদিকে দিনকাল ভালোই যাচ্ছিলো। বন বিভাগের বাংলোতে থাকা খাওয়া সে এক রাজকীয় ব্যাপার। অতি অল্পদিনেই আমি ভুলে গিয়েছিলাম পাবর্ত্য বনে সেই বুনো শুয়োর তাড়া করার চরম ভোগান্তির কথা। ঘটনার গভীরে যাওয়ার আগে পাঠককে আমার পরিচয়টা একটু দিয়ে নিচ্ছি। আমি সেলিম- সেলিম চৌধূরী। বাংলাদেশ সরকারে...

ডলফিনের জন্য ভালোবাসা

বিস্তারিত পড়ুন

ডলফিনের জন্য ভালোবাসা

আলতামাস পাশা

আমি সোহেল আদনান। পেশায় বিজ্ঞান সাংবাদিক। সম্প্রতি সুন্দরবন এলাকায় তেলবাহী জাহাজ ডুবে যাওয়ার ঘটনার পর ঐ এলাকায় যেতে আগ্রহী হয়ে উঠি। জাতিসংঘের একটি বিশেষ দলের সঙ্গে গতকাল সুন্দরবনে এসে পৌঁছেছি। বিশেষজ্ঞ দলটির কার্যকলাম দেখা ছাড়াও আমি নিজে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে এবং স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে সুন্দরবনের পরিবেশ দুষণের ব্যাপারটি চাক্ষুষভাবে বোঝার চেষ্টা করবো। শীতের সময় এখন। আমরা রয়েছি নদীর উপর পর্যবেক্ষণ নৌযানে। খুব সকালে আমার ঘুম ভেঙ্গেছে। এখনও কুয়াশার পর্দা সরিয়ে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। আমি ভাবছিলাম সুন্দরবনের কথা। প্রকৃতির এক আশ্চর্য সৃষ্টি এই সুন্দর...

bdjogajog