কাক কাহিনী (ধারাবাহিক সায়েন্স ফিকসন)

আলতামাস পাশা লেখাটি পড়েছেন 180 জন পাঠক।
 প্রথম পর্ব

প্রতি দিনই আসে কাকটি। পাশের বাড়ির ৫ তলার ফ্লাটটি আছে বহুদিন। ফ্লাটটির বারান্দার গ্রিলে কাকটি বসে এসে।মাঝে মাঝে কা কা করে  ডাকে। নিলয় কাকটিকে তাড়া দেয়। কিন্তু সহজে উড়ে যায় না সে। বরং চুপচাপ বসে থাকে। বেশ কিছু দিন এভাবেই চলে  যায়।

আশ্চর্য ঘটনাটি ঘটে দিন পনেরো পড়ে। তারিখটা নভেম্বরের ১৭। নিলয় তারিখটা মনে রেখেছে। বারান্দায় বসে লেপটপে কাজ করছিল নিলয়। সামনে কফির কাপ আর প্লেটে সেন্ডুইচের আধ খাওয়া অংশ। ঠিক সে সময়ই ঘটনাটি ঘটে। কাকটি স্পষ্ট বাংলায় বলে উঠে, সেন্ডুইচের আধ খাওয়া অংশটি আমাকে ছুঁড়ে দাও তো’।

চমকে নিলয় এদিকসেদিক তাকায় কিন্তু কাউকে দেখতে পায় না। সামনের ফ্ল্যাটের বারান্দা থেকে কেউ কথা বললো না’কি! এসময় কাকটির দিকে চোখ যায়। এবার সে স্পষ্ট বাংলায় কাকটিকে বলতে শোনে সেন্ডুইচের খাওয়া অংশটি আমাকে ছুঁড়ে দাও তো’।

নিজের দু’কানকে বিশ্বাস করতে পারে  না নিলয়। ভীষণ ভয় আর অস্থির লাগে তার। সে জানে কাক কখনও পোষ মানে না। কথা বলা তো দূরের কথা।

নিলয়ের বিস্ময়ের ঘোর কাটতে না কাটতেই কাকটি আবার বলে উঠে, কী হলো দিচ্ছ না কেন?
(চলবে)

পাঠকের মন্তব্য


একই ধরনের লেখা, আপনার পছন্দ হতে পারে

bdjogajog